শিরোনাম
  বকেয়া টাকার দাবি পাটকল শ্রমিকদের       মৌলভীবাজার শ্রীমঙ্গল চা বাগানে গাছের ডাল ভেঙ্গে এক নারী শ্রমিকের মৃত্য       শ্রমিক নেতা ইউসুফ শেখ’র উপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ       আশুলিয়ায় শ্রমিক নেতার ওপর হামলা করে ২২ হাজার টাকা লুট       অটোরিক্সা কেনার টাকা না দেয়ায় পোশাক শ্রমিক স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যার অভিযোগ       মালয়েশিয়ায় যেতে কর্মীদের নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু       বাকেরগঞ্জে নানার ধর্ষণে নাতনি অন্তঃসত্ত্বা -বাকিতে সালিশ করলেন চেয়ারম্যান       গার্মেন্টস শ্রমিকদের কার্ডের মাধ্যমে রেশন দেবে সরকার       ৮ অগ্নিদগ্ধকে হেলিকপ্টারে ঢাকা পাঠানো হয়েছে: জেলা প্রশাসক       বন্ধুকে আগুন দেখাতে গিয়ে নিজেই হলেন লাশ    
৮ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

প্রকাশিত সময় : মে, ২৯, ২০২০, ১১:৪১ অপরাহ্ণ

পাঠক দেখেছেন 827 জন
 

সুদ একটি সামাজিক ব্যাধি-সমাজের ক্যান্সার। যুগযুগ ধরে এই ব্যাধি পরিবার সমাজ কে কুঁড়ে কুঁড়ে খাচ্ছে। সারাদেশে ছড়িয়ে আছে সুদ কারবারিরা। শ্রমিক থেকে শুরু করে অনেক বিত্তশালী ব্যাক্তিও এই সুদ কারবারিদের নিকট জিম্মি। করোনা দূর্যোগকালে যখন থমকে গেছে সব, থেমে গেছে অর্থনীতির চাকা। তখনও থামেনি সুদখোররা! অসহায় শ্রমিক শ্রেণি যখন কোনো কারনে অর্থনৈতিক বিপদগ্রস্থ হয়ে সুদের উপর ঋন নিতে বাধ্য হয় তখন ঐ সুদখোররা অসহায়েত্বর সুযোগ নিয়ে শ্রমিক শ্রেণির রক্তচোষা শুরু করে। এই সুদের পরিমান সুদখোররা নিজেরাই নির্ধারন করে, কেননা এ বিষয়ে কোন নীতিমালা চোখে পড়েনা। এরা প্রতি হাজার টাকায় ১৫০-২০০টাকা মাসিক সুদ ধার্য করে। একজন খেটে খাওয়া দিনমজুর যদি কোনো সুদ কারবারি হতে ৫০০০ টাকা ঋন নেয়, তবে ঐ দিনমজুর কে ৫০০০ টাকার জন্য প্রতি মাসে ১০০০ টাকা সুদ দিতে হয়। যদি ঋনকারী কোন কারনে দু মাস সুদ দিতে না পারে তাহলে তার ৫০০০টাকার সুদে আসলে দাড়ায় ৭০০০টাকা। আর যদি সময় মতো আসল ও সুদ পরিশোধ করতে না পারে তাহলে ঐ ব্যক্তির সহায় সম্বল কেড়ে নেয় সুদখোররা। সুদ ইসলাম ধর্ম তথা অন্যান্য ধর্মও সমর্থন করেনা। এই সুদ কারবারিরা সরকার কে কোন কর দেয়না। হাজার টাকা থেকে লাখ টাকার মালিক হয়ে যায় নিরিহ অসহায় মানুষের শ্রম-ঘাম রক্ত চুষে। রাষ্ট্রীয় ভাবে সুদখোরদের তালিকা করে এদের নিয়ন্ত্রণ করা হলে কমে যেত পারিবারিক কোলহ ও সামাজিক বিশৃঙ্খলা। সমাজে বিনা সুদে ঋন কর্যের প্রচলন করতে পারলে পারিবারিক ও সামাজিক অবক্ষয় রোধ করা সম্ভব বলে প্রতিবেদক মনে করে। সুদ কারবারিরা অধিকাংশরাই কোন কর্ম করেনা। সুদ’ই এদের পেশা। সুদ পেশাকে রাষ্ট্রীয়ভাবে নিষিদ্ধ করা উচিত বা এই কারবারিদের জন্য নীতিমালা প্রনয়ণ করা দরকার। তা না হলে এদের নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। একটি বাস্তব চিত্র- কোন এক পোশাক শ্রমিক তার বাড়ি করতে গিয়ে অর্থনৈতিক সংকটে পড়লে সেই শ্রমিক এক সুদখোরের নিকট হতে ২৫হাজার টাকা ঋন নেয়, মাসে সেই ঋনের পরিবর্তে ঐ শ্রমিককে সুদ প্রদানকারীকে দিতে হয় ৫০০০ টাকা। কোনোভাবে দিতে না পারলেই সুদ-আসল বেড়ে হয় দ্বিগুন। পরিশোধে ব্যর্থ হলেই ঋনকারীর ঘরের জিনিস কেঁড়ে নেয় সুদ করবারি। সুদের ব্যবসা বন্ধ হোক, এই কামনা।

লেখক

(পলাশ হোসাইন)

Facebook Comments

     

আরও পড়ুন

বকেয়া টাকার দাবি পাটকল শ্রমিকদের

মৌলভীবাজার শ্রীমঙ্গল চা বাগানে গাছের ডাল ভেঙ্গে এক নারী শ্রমিকের মৃত্য

শ্রমিক নেতা ইউসুফ শেখ’র উপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

আশুলিয়ায় শ্রমিক নেতার ওপর হামলা করে ২২ হাজার টাকা লুট

অটোরিক্সা কেনার টাকা না দেয়ায় পোশাক শ্রমিক স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যার অভিযোগ

মালয়েশিয়ায় যেতে কর্মীদের নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু

বাকেরগঞ্জে নানার ধর্ষণে নাতনি অন্তঃসত্ত্বা -বাকিতে সালিশ করলেন চেয়ারম্যান

গার্মেন্টস শ্রমিকদের কার্ডের মাধ্যমে রেশন দেবে সরকার

৮ অগ্নিদগ্ধকে হেলিকপ্টারে ঢাকা পাঠানো হয়েছে: জেলা প্রশাসক

বন্ধুকে আগুন দেখাতে গিয়ে নিজেই হলেন লাশ

পোশাক শ্রমিকদের হঠাৎ বাড়ি ফেরার হিড়িক

কথা রাখলেন না গার্মেন্টস কর্তৃপক্ষ, চাকরিচ্যুত শ্রমিক-দম্পতি

বিজিএমইএ সভাপতি কতৃক শ্রমিক ছাটাই ঘোষণার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলনে

সাভারে পোশাক শ্রমিকদের ঢিলেঢালা ঈদ উৎযাপন

৯০ এর রাজপথ কাপানো জাসদ নেতা হান্নান ক্যান্সারে আক্রান্ত

বিজিএমইএ’র অনুরোধ রাখলো না সাভারের অনেক পোশাক কারখানা!

এ্যাসপায়ার গার্মেন্টসের শ্রমিককে জোরপূর্বক চাকরিচ্যুত, বেতন পরিশোধের ভিডিও করে বেতন কেড়ে নেলো কর্তৃপক্ষ

ট্রাকে ঈদযাত্রা: ধর্ষণের পর হত্যা করা হয় গার্মেন্টসকর্মী মৌসুমীকে

বিজিএমইএ’র সভাপতির শ্রমিক ছাটাইয়ের ঘোষণা অত্যন্ত অমানবিক নিষ্ঠুরতা

মায়ের কবরের পাশেই চিরনিদ্রায় শায়িত হতে চান – দাদা ভাই

 

Top